চবি একাউন্টিং বিভাগের ৫০ বছর পূর্তি সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপিত

Total Views : 122
Zoom In Zoom Out Read Later Print

হৃদয় আলম চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও বর্ণিল আয়োজনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় একাউন্টিং বিভাগের ৫০ বছর পূর্তি সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসব উদযাপিত হয়েছে।দু’দিন ব্যাপি (১৪-১৫ অক্টোবর) উৎসবের দ্বিতীয় দিন ১৫ অক্টোবর ২০২২ সকাল ১০:৩০ টায় চবি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে সুবর্ণ জয়ন্তী আলোচনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চবি একাউন্টিং বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত প্রফেসর অমল ভূষণ নাগ, অবসরপ্রাপ্ত প্রফেসর ড. মোঃ আবদুল হাই ও অবসরপ্রাপ্ত প্রফেসর ড. মনজুর মোরশেদ মাহমুদ এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির  সভাপতি জনাব ওয়াসিকা আয়েশা খান এম.পি., সিএজি অব বাংলাদেশ জনাব মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের  সচিব জনাব মুঃ মোহসিন চৌধুরী ও চবি  উপ-উপাচার্য (একাডেমিক) প্রফেসর বেনু কুমার দে। 

সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসব উদযাপন কমিটির আহবায়ক চবি ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর মোঃ হেলাল উদ্দিন নিজামীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চবি একাউন্টিং বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আইয়ুব ইসলাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন কমিটির সদস্য-সচিব একাউন্টিং বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ আলী আরশাদ চৌধুরী।

উপাচার্য তাঁর বক্তব্যে একাউন্টিং বিভাগের ৫০ বছর পূর্তি সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে উপস্থিত  সাংসদ, প্রতিথযশা শিক্ষাবিদ এবং সুধীজনসহ উপস্থিত সকলকে স্বাগত ও আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান। 

তিনি বলেন, একাউন্টিং বিভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যবাহী একটি বিভাগ। এ বিভাগ ৫০ বছর অতিক্রম করেছে। দীর্ঘ ৫০ বছরে এ বিভাগ মানবসম্পদ উন্নয়নে যে অসামান্য ভূমিকা রেখেছে তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। এ বিভাগে অনেক জ্ঞানী-গুণী প্রতিথযশা অধ্যাপক অধ্যাপনা করেছেন এবং করছেন। এ সকল গুণী শিক্ষকদের সান্নিধ্যে থেকে জ্ঞান আহরণের মাধ্যমে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা দেশে-বিদেশে সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এটি একাউন্টিং বিভাগ তথা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য অত্যন্ত আনন্দের ও গৌরবের।

উপাচার্য আরও বলেন, সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা যেমন আনন্দে উদ্বেলিত তেমনি বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারও তাদের সরব উপস্থিতিতে গৌরবান্বিত। প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ অব্যাহত রেখে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক-প্রশাসনিক ও সার্বিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবেন  উপাচার্য এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠান সূচিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি এবং আমন্ত্রিত অতিথিদের সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।    

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ‘Contemporary Issues of Accounting Practices’ শীর্ষক সুবর্ণ জয়ন্তী স্মারক বক্তব্য প্রদান করেন ভারতের একাউন্টিং রিসার্চ ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও ইন্ডিয়ান একাউন্টিং এসোসিয়েশনের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. ভবতোষ ব্যানার্জী। 

অনুষ্ঠানে তৃতীয় পর্বে স্টার এলামনাই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ একাউন্টিং এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. এম. হারুনুর রশীদ। চবি একাউন্টিং বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আইয়ুব ইসলামের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসব উদযাপন কমিটির আহবায়ক চবি ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর মোঃ হেলাল উদ্দিন নিজামী। অনুষ্ঠানে ১২৩ জন গুণী শিক্ষার্থীকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে চবি বিভিন্ন অনুষদের ডিনবৃন্দ, চবি শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, বিভাগীয় সভাপতি, ইনস্টিটিউট ও গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালকবৃন্দ, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ও সহকারী প্রক্টরবৃন্দ, শিক্ষকবৃন্দ, অফিস প্রধানবৃন্দ, একাউন্টিং বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও তাঁদের পরিবারবর্গ, বর্তমান শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং সুধীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

See More

Latest Photos