চট্টগ্রাম নগরে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ার

Total Views : 146
Zoom In Zoom Out Read Later Print

বিশেষ প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম শহরের অন্যরকম দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ার, যেখানেই দুর্যোগ দুর্বিপাক সেখানেই সংঘবদ্ধভাবে হাজির হচ্ছে আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ার। ইতোমধ্যে তাঁদের ব্যাপক কর্মযজ্ঞতা নগর প্রতিনিধি থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের মাঝে অন্যরকম প্রাণচাঞ্চল্যতা সৃষ্টি করেছে। যেকোনো ধরণের দুর্যোগ মোকাবিলায় তারাই মূলত প্রথম সাড়াপ্রদানকারী। এমনকি দুর্যোগের পূর্ব প্রস্তুতিতেও তারা অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। গত ৪ বছরে চট্টগ্রামে সংগঠিত সবধরণের অগ্নিকাণ্ড, পাহাড়ধস, সড়ক দুর্ঘটনা প্রায় সকল ধরণের বিপর্যয়ে আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ারগণ তাৎক্ষণিক ছুটে এসেছে। এছাড়াও অনেক ধরণের সামাজিক ও মানবিক কার্যক্রমেও কমিউনিটি ভলান্টিয়ারদের ভূমিকা বেশ প্রশংসনীয়। রক্তদান কর্মসূচি,  কোভিড-১৯ গণটিকা কর্মসূচি, ডেঙ্গু, চিকনগুনিয়া রোধে ক্রাশ পোগ্রাম পোগ্রাম, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান,বৃক্ষরোপন কর্মসূচি,সৌন্দর্য বর্ধণ কর্মসূচি, জলবায়ু পরিবর্তন জনিত সমস্যা সমাধানে সম্মিলিত কর্মসূচি, সিআরবি রক্ষা আন্দোলনে তাঁদের ভূমিকা সমুজ্জ্বল। আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ারগণ তাঁদের কার্যক্রমে সবচেয়ে বেশি সাড়াজাগায় কোভিড-১৯ প্রেক্ষাপটে, সেইসময় ইপসা ও সেভ দ্য চিলড্রেন প্রকল্পাধীন নগরীর ৩টি ওয়ার্ডে ১৫০ জন ভলান্টিয়ার যথাক্রমে ৭ নং পশ্চিম ষোলশহর, ৮ নং শুলকবহর এবং ১৯ নং দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ডে ব্যাপকভাবে কাজ করে, লকডাউন সফল করতে সকল ধরণের কার্যক্রম বিশেষ করে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা, কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, ত্রাণ সংগ্রহ ও ঘরে ঘরে পৌঁছে দেয়া,মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সোপি ওয়াটার বিতরণ, প্রশাসনিক সকল কাজে সহায়তা ছিলো উল্লেখযোগ্য। ইপসা প্রয়াস-২ প্রকল্পাধীন প্রশিক্ষিত আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ারদের ব্যাপক কার্যক্রম চট্টগ্রামের মেয়র মোঃ রেজাউল করিম চৌধুরীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়। তার-ই সুবাদে চট্টগ্রামের মেয়র নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে আরো ১৫০০ ভলান্টিয়ার তৈরি করে। তাদের মধ্যে মধ্যে থেকেও ১০০জন মাষ্টার ট্রেইনার সহ প্রকল্পাধীন নগরীর ৪নং চান্দগাঁও ওয়ার্ডে আরো ৫০ জন কমিউনিটি ভলান্টিয়ারকে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স দ্বারা প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। সর্বসাকল্যে ইপসা ও সেভ দ্য চিলড্রেন  প্রয়াস-২ প্রকল্পের মাধ্যমে ৩০০ কমিউনিটি ভলান্টিয়ারকে প্রশিক্ষণ প্রদান করে। বর্তমানে আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ারগণ নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধিদের আস্থা ও বিশ্বাসের নাম। যেকোনো প্রয়োজনে তারা-ই এগিয়ে আসে সবার আগে। যেকোনো ধরণের দুর্যোগে প্রথম সাড়াপ্রদানকারী দল হিসেবে যেমনটি তারা ছুটে আসে তদ্রুপ গণটিকা কর্মসূচি, মশক নিধনে ক্রাশ পোগ্রাম, পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচি,  বিভিন্ন দিবস ভিত্তিক কর্মসূচি, কৃষি শুমারী,জনশুমারী ইত্যাদিও তাদের মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে থাকে। তারই স্বীকৃতি হিসেবে চট্টগ্রাম নগরীর ২ জন স্বেচ্ছাসেবক মুন্নী আক্তার ও রোহান আহমেদ জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ ভলান্টিয়ারের স্বীকৃতি অর্জন করে এবং আরেকজন ভলান্টিয়ার আবু বক্কর হারুণ কয়েক বছর যাবত বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি থেকে শ্রেষ্ঠ রক্তদাতা সংগঠক হিসেবে পুরষ্কৃত হয়ে আসছেন। মূলত প্রতিটি ওয়ার্ডের দায়িত্বশীল ও দক্ষতা সম্পন্ন নারী-পুরুষদের নিয়ে এই টিম গঠিত হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স দ্বারা ৩০০ জন ভলান্টিয়ার  Search, Rescue, FristAid and Fire fighting প্রশিক্ষণ ফেলেও অন্যদেরকেও উদ্দীপ্ত করতে মাঝেমধ্যে বিভিন্ন সেশন পরিচালিত হয়ে থেকে। গতবছর ৮ ডিসেম্বর নগরীর এলজিইডি ভবনে ইপসা ও সেভ দ্য চিলড্রেন এর উদ্যোগে ব্যাপক কলরবে নগর স্বেচ্ছাসেবক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। নগর স্বেচ্ছাসেবক সম্মেলনে মেয়র মোঃ রেজাউল করিম চৌধুরী স্বেচ্ছাসেবকদের জন্য কন্ট্রোল রুম সহ বেশকিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন যা স্বেচ্ছাসেবকদের আরোবেশী উদ্দীপ্ত করে। সাম্প্রতিক সময়ে সীতাকুণ্ডে সংঘটিত বিএম ডিপো ট্রাজেডিতে তাৎক্ষণিক সাড়া প্রদান আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ারগণ দেশবাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়। চলতি বছরের এইসময় পাহাড়ধসের আশঙ্কায় বিভিন্ন পাহাড়ী এলাকা থেকে জনসাধারণকে সরিয়ে নিতে ব্যাপকভাবে কাজ করে। এইপ্রসঙ্গে ৮ নং শুলকওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ মোরশেদ আলমের মতামত জানতে চাইলে তিনি জানান আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ারদের কর্মযজ্ঞতা এত ব্যাপক যে তা সল্প পরিসরে বর্ণনা করা সম্ভব নয়। শুধ এইটুকুই বলতে পারি ওরা নগর জনপ্রতিনিধিদের সবচেয়ে আস্থা, ভালবাসা ও বিশ্বাসের নাম। তিনি সেভ দ্য চিলড্রেন ও ইপসার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। ৭ নং পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব মোবারক আলী বলেন ইপসা এবং সেভ দ্য চিলড্রেন এর মাধ্যমে গঠিত আরবান কমিউনিটি ভলান্টিয়ারদের ব্যাপক কর্মযজ্ঞতা মেয়র মহোদয়কে আকৃষ্ট করে তারই সুবাদে মেয়র ৪১ টি এটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেয়। ভলান্টিয়ারগণ শুধু দুর্যোগকালীন সাড়াপ্রদান-ই নয় বরং দুর্যোগের প্রস্তুতি, নগর ঝুঁকি নিরূপণেও তারা বেশ ভালো ভূমিকা রাখছে।

See More

Latest Photos