বাংলাদেশে 'চীনা ভাষার আকর্ষণ' শীর্ষক 'চার্ম অফ চাইনিজ' অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান

Total Views : 76
Zoom In Zoom Out Read Later Print

,বাংলাদেশে 'চীনা ভাষার আকর্ষণ' শীর্ষক 'চার্ম অফ চাইনিজ' অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান

 

বাংলাদেশে চীন আন্তর্জাতিক বেতার (সিআরআই) ও দৈনিক আমাদের সময়ের উদ্যোগে 'চীনা ভাষার আকর্ষণ' শীর্ষক 'চার্ম অফ চাইনিজ' অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার যমুনা ফিউচার পার্কে রোববার বিকালে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত চাং চুও, তাঁর স্ত্রী, কালচারাল কাউন্সিলর সান ইয়ান, জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক প্রতিনিধি আবুল কালাম মোমেন, চীনা কোম্পানির প্রতিনিধিরা ও বাংলাদেশের গণমাধ্যম প্রতিনিধিসহ প্রায় তিনশ' আমন্ত্রিত অতিথি এবং প্রায় এক হাজার দর্শক অংশ নেন।

বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত চাং চুও অনুষ্ঠানে বলেন, 'চীনা ভাষার আকর্ষণ' শীর্ষক 'জ্ঞান যাচাই প্রতিযোগিতা' হচ্ছে 'চীনা সাংস্কৃতিক মাস' ধারাবাহিক সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের শেষ কর্মসূচি এবং চীন আন্তর্জাতিক বেতার ও দৈনিক আমাদের সময় সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষরের পর দেশব্যাপী যৌথভাবে আয়োজিত প্রথম কর্মসূচি। এর সফল আয়োজন বাংলাদেশের জনগণের মধ্যে চীন ও চীনা ভাষা সম্পর্কে আরও ভালোভাবে জানার আগ্রহ তৈরি করবে। এ ধরনের কর্মসূচি নিয়মিত আয়োজনের প্রত্যাশাও করেন তিনি।

দৈনিক আমাদের সময়ের প্রধান সম্পাদক মোহাম্মদ গোলাম সরওয়ার বলেন, 'চার্ম অফ চাইনিজ-জ্ঞান যাচাই প্রতিযোগিতা' হচ্ছে আমাদের সময় ও চীন আন্তর্জাতিক বেতারের একটি সফল সহযোগিতা। এতে বাংলাদেশের জনগণ সক্রিয় সহযোগিতা করেছে। বাংলাদেশের মানুষ চীনা ভাষা, সংস্কৃতি, ইতিহাস ও ঐতিহ্যের প্রতি আরও বেশি আকর্ষণ বোধ করছে। দু'দেশের সম্পর্কের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে এবং দিন দিন এ সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হচ্ছে। চীন হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন অংশীদার। ভবিষ্যতে দৈনিক আমাদের সময় ও চীন আন্তর্জাতিক বেতারের সহযোগিতা আরো উন্নত হবে বলে আশা করেন তিনি।

উল্লেখ্য, এবারের 'চীনা ভাষার আকর্ষণ- জ্ঞান যাচাই প্রতিযোগিতা' গত জুলাই মাস থেকে শুরু হয়। চীন আন্তর্জাতিক বেতারের রেডিও, ওয়েবসাইট ও দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার মাধ্যমে চীন সরকার বৃত্তি, এইচএসকে পরীক্ষা, বাংলাদেশে চীনা ভাষা প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানের পরিচয় নিয়ে ধারাবাহিক প্রবন্ধ ও ১১টি প্রশ্ন করা হয়। বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানের ৫০০০-এরও বেশি মানুষ এতে অংশগ্রহণ করে। বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ৩১ জন এবং ভারত থেকেও একজন প্রতিযোগী জয়ী হন।

অনুষ্ঠানে চীনা ভাষার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা চীনের সংস্কৃতি নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বিভিন্ন পারফর্মেন্স করে।

বাংলাদেশ বেতার, আরটিভি, বাংলাভিশনসহ মোট ৭১টি বাংলাদেশি গণমাধ্যম এ অনুষ্ঠানের খবর সংগ্রহ করেছে।

তথ্যসুত্র : দিদারুল ইকবাল

See More

Latest Photos