সীতাকুণ্ডে ইউপি নির্বাচনে ভোটারদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো,

Total Views : 174
Zoom In Zoom Out Read Later Print

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি..

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে উৎসব মূখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। ভোটার উপস্থিতিও হয়েছে চোখে পড়ার মতো।দিন বাড়ার সাথে সাথে ভোটার উপস্থিতি বেড়েছে।
বিকাল চারটা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহন চলেছে। ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে আসতে পারে সে জন্য প্রতিটি কেন্দ্রে পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রয়েছে।
সীতাকুণ্ডের নয়টি ইউনিয়নের ৯০টি কেন্দ্রে বৃহস্পতিবার সকাল ৮ থেকে চলে ভোট গ্রহণ। সংঘাত ঠেকাতে কঠোর বার্তা দেয়ার পাশাপাশি ৬ জন ম্যাজিস্ট্রেট ও আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা মাঠে টহল দিয়েছেন।
সকালে ১নং সৈয়দপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ২কেন্দ্র, ৪নং মুরাদপুর ইউনিয়নের ভাটেরখীল, গোলাবাড়িয়া, পেশকার পাড়া, ফকিরহাট, বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের বাঁশবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়, ইউনিয়ন পরিষদ, বাঁশবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সোনাইছড়ি ইউনিয়নের কয়েকটি কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে ভোটারদের বিপুল উপস্থিতি।
এদিকে ৪নং মুরাদপুর ইউনিয়নের ২নং ভাটেরখীল প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে সংঘর্ষ ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। তবে পুলিশের বিচক্ষণতায় পরিস্থিতি দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আসে।
অন্যদিকে ভোরে সোনাইছড়িতে দুই ইউপি সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। তবে পুলিশ দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এরপর সেখানে বড় ধরণের সংঘাতের খবর পাওয়া যায়নি।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, ৯টি ইউনিয়নে মধ্যে ৫টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর বিপরীতে কোন প্রার্থী না থাকায় তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। তবে এসব ইউনিয়নে পুরুষ ইউপি সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্যদের ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
অন্যদিকে বারৈয়াঢালা, বাড়বকুণ্ড বাঁশবাড়ীয়া ও সলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য পুরুষ ও সংরক্ষিত মহিলা প্রার্থীদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সীতাকুণ্ডে ৯টি ইউনিয়নে মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্য ৯০টি। তন্মেধ্যে স্থায়ী ৮৬ টি ও ৪টি অস্থায়ীভোট কেন্দ্র রয়েছে। এসব কেন্দ্রে মোট ভোট কক্ষের সংখ্যা ৬২৬টি। তন্মেধ্যে স্থায়ী ৫৮২, অস্থায়ী ৪৪টি। মোট ভোটার ২ লাখ ৬৪ হাজার ৯৮৯। তারমধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছে ১ লাখ ৪১ হাজার ৩৮১ ও মহিলা ভোটার ১ লাখ ২৩ হাজার ৬০৮ জন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, সকাল থেকে সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। এ নির্বাচনে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের ভোট কেন্দ্রে ৩ জন রিটানিং কর্মকর্তা, ৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পোশাকধারী পুলিশ ৩৬০ জন, ৫ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাব ও দেড় হাজার আনসার সদস্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছেন।তিনি বলেন আরও বলেন, সব চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য প্রার্থীরা আমাদেরকে কথা দিয়েছেন কেউ কোন রকম বিশৃঙ্খলা করবেন না। এরপরও যদি কেউ বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করেন তাহলে আমরা কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

See More

Latest Photos