বাঁশখালী পৌরসভার শেখ মর্তুজা আলী চৌধুরী সড়ক নির্মাণে অনিয়ম

Total Views : 636
Zoom In Zoom Out Read Later Print

জসিম উদ্দিন,বাঁশখালী.

চট্টগ্রাম বাঁশখালী পৌরসভার প্রাণ কেন্দ্র বাহাউল্লাহ পাড়া শেখ মর্তুজা আলী চৌধুরী সড়কটি দীর্ঘদিন যাবৎ অযত্ন আর অবহেলায় ছিল। যেখানে বর্তমানে ভরা শুষ্ক মৌসুমে ব্যাপক কাঁদামাটি ও পানিতে ভরে আছে। সব মিলিয়ে প্রায় এক যুগ পর এই রাস্তাটির উন্নয়ন কাজ শুরু হলেও ব্যাপক অনিয়ম লক্ষ করছে বলে জানান এলাকাবাসী।এই রাস্তাটি বাঁশখালী পৌরসভার প্রাণকেন্দ্র অবস্থিত হওয়াতে প্রতিনিয়ত শত শত যানবাহন, স্কুল,কলেজ, মাদ্রাসা ও এলাকার মানুষ চলাচল করছে।


প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে যানা যায় এই রাস্তাটি প্রায় এক যুগ পর উন্নয়নের দেখা মিললে ও সরকারি নিয়ম অনুয়ায়ী কোন কাজ হচ্ছে না। বালি দেয়ার কথা থাকলে ও দিচ্ছে মাটি, এই রাস্তাটি টেকশই করার জন্য গ্রেড ওয়াল দেয়ার কথা থাকলে ও দিচ্ছে না। যার কারণে এই রাস্তার নিচে ফাঁকা খালি জায়গা আছে। যে কোন সময় এই রাস্তাটি নিচে ধ্বসে পড়তে পারে।


অন্য দিকে করোনা ভাইরাসের মহামারির জন্য  বর্তমানে স্কুল, কলেজ বন্ধ থাকার কারণে ছোট ছোট কম বয়সী ছেলেদের দিয়ে এই রাস্তটির  ভারী কাজ করাচ্ছে বলে স্বীকার করছে ভুক্তভোগী। 


বাংলাদেশের আইন সূত্রে জানা যায়,

শিশুশ্রম নিষিদ্ধ করে বাংলাদেশ শ্রম (সংশোধন) আইন ২০১৮-এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। কেউ যদি শিশু শ্রমিক নিয়োগ করে, তাঁকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হবে। ১৪ থেকে ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত কিশোররা হালকা কাজ করতে পারার কথা আইনে উল্লেখ থাকলে ও কিশোরদের দিয়ে কটিন ও ভারী কাজ করাচ্ছে ।


এই ব্যাপারে বাঁশখালী পৌরসভার মেয়র শেখ সেলিমুল হক চৌধুরীর সাথে কথা বললে তিনি বলেন বলেন, আমি এখন বাহিরে আছি আগামী মাসের দুই তারিখ আসবো। এখানে কাজের নিয়ম মোতাবেক কাজ করতে হবে যদি নিয়ম অনুয়ায়ী কিংবা নিম্নমানের কাজ হয় সেই ক্ষেত্রে কাজ বন্ধ থাকবে। আমি সব সময় আমাদের পৌরসভার ইঞ্জিনিয়ারকে বলে রাখছি এই রাস্তাটি কাজ সটিক ভাবে দেখেশুনে বুঝে নেয়ার জন্য। তবে কিছু এলাকার মানুষ এই কাজটি চেয়েছিল আমি দিতে পারি নাই কারণ এখানে কাজটি একজনে পাইলে অন্য জনকে দেয়ার মতো ক্ষমতা আমার নাই কারণ যে কাজটি পাইল সে অনলাইলে ই-জিপির মাধ্যমে পাইল। আমিও চাই এতদিন পর কাজটি যেহেতু কাজটি হচ্ছে সটিক এবং সুষ্ঠুভাবে যেন কাজটি হয়।

See More

Latest Photos