আমেরিকার বোষ্টনে বর্ষাসাটিক চীবরদান ও সংঘদান

Total Views : 120
Zoom In Zoom Out Read Later Print

উৎফল কুমার বডুয়া সার্জেন্ট(অবঃ),বোস্টন,আমেরিকা।



#আমেরিকার বোস্টনে বাংলাদেশী বৌদ্ধদের নিজস্ব ভুমিতে স্থাপিত আন্তর্জাতিক ধর্মচক্র বৌদ্ধ বিহার ও মেডিটেশান সেন্টারের উদ্যোগে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের আত্মশুদ্ধি তথা ভিক্ষু সংঘের বর্ষাব্রত অধিষ্টান উপলক্ষে পবিত্র বর্ষাসাটিক চীবরদান ও সংঘদান ২২ই সেপ্টেম্বর ২০১৯ খৃষ্টাব্দ রবিবার যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য মর্যাদায় সুসম্পর্ন করা হয়েছে। 


এইদিন বোস্টনে বসবাসরত বাংলাদেশী সব বয়সের বৌদ্ধরা রংবেরঙের পোশাকে সজ্জিত হয়ে সকাল ১০ ঘটিকার সময় মন্দিরে সমবেত হয়ে সর্বপ্রথমে ত্রিপিটক হতে পাঠ, বুদ্ধ ও সীবলী পূজা এবং শীলগ্রহনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সুচনা করেন।


প্রথম পর্বের সংঘদান অনুষ্ঠানের শুরুতে মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও বুদ্ধের ললাটে দানবীর বাবু তপন চৌধুরী কর্তৃক দান কৃত স্বর্ন তিলক স্থাপন করে বুদ্ধকে পূজা করেন অত্র সেন্টারের অধ্যক্ষ ও পরিচালক প্রফেসর ফ্রা মহা নিরোধ (এম.ফিল.)। 

শীল প্রার্থনা করেন যথাক্রমে বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও ধর্মপ্রান উপাসক বাবু রাতুল বড়ুয়া ও শিক্ষানুরাগী ও ধর্মানুশীল ব্যক্তিত্ব বাবু তপন কুমার সিংহ। শীলাদি প্রদান তথা ত্রিপিটক হতে বানী পাঠের মধ্য দিয়ে শামাথা মেডিটেশনের কর্মস্থান ও ধর্মদেশনা প্রদান করেন আমেরিকার বস্টনস্থ ওয়াট ফ্রা ধাম্মাকায়া মেডিটেশন সেন্টার, বস্টন শাখার অধ্যক্ষ ধর্মদূত ড. ফ্রা আচান মনিকান্ত মহাথের, থাইল্যান্ড। উনি বিশ্বের সকল প্রাণীর সুখ ও শান্তি কামনায় মহামঙ্গল সূত্র পাঠ ও বিশেষ প্রার্থনা করেন। 

স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন অত্র সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা ও বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভা কর্তৃক শাসনজ্যোতি উপাধিতে ভুষিত উপাসকরত্ন দানবীর বাবু তপন চৌধুরী। দানবীর তপন চৌধুরী, উনার বক্তব্যে বস্টনপ্রবাসী বাংলাদেশী সকল বৌদ্ধদের নিজ নিজ জায়গা হতে ধর্মীয় দৃষ্টিকোন থেকে বুদ্ধের শাসনের উন্নতি কল্পে ভূমিকা রাখার আহবান জানান। 


এবং তিনি আরো বলেন এই বৌদ্ধ বিহার পরবর্তী প্রজন্মের কাছে নীতি ও নৈতিক আদর্শের ধারক ও বাহক হয়ে বিরাট ভূমিকা পালন করবে। তিনি আরো বলেন বুদ্ধের সমকালীন সময়ে অনেক রাজা মহারাজা বৌদ্ধ বিহার দান করে আজো ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে আছেন। আমি অত্র বৌদ্ধ বিহার দান করেছি সেটা বড় কথা নয়, বোস্টন প্রবাসী বাংলাদেশী বৌদ্ধরা বিহারটিকে কিভাবে সুন্দর ও সুচারুরুপে রক্ষনাবেক্ষন ও পরিচালনা করবেন সেটাই বড় কথা। তিনি বলেন আমি এই বৌদ্ধ বিহারের কর্তা ও মালিক নই, আমি এই বৌদ্ধ বিহারের আজীবন সেবক হয়েই থাকতে চাই। তিনি আরো বলেন মহান পূজনীয় ভিক্ষু সংঘেরাই এই বিহারের মালিক ও কর্নধার। পরিশেষে সবাইকে অত্র বৌদ্ধ বিহারের সৌন্দর্য বর্ধন ও উন্নয়ন কল্পে নিজ নিজ জায়গা হতে এগিয়ে আসার জন্য অনুরোধ করেন।

এবং ধর্মপ্রান উপাসক উপাসিকা সকলের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। সকাল বেলার সর্বশেষ পর্বে বিহারের অধ্যক্ষ ভান্তে সংঘদান উৎসর্গের মধ্য দিয়ে পূণ্যানুমোদনের সকল ধর্মীয় কার্যাদি সুসম্পর্ন করেন। 


দুপুর বারটায় অতিথি আপ্যায়নের আয়োজন করা হয়। 


দ্বিতীয় পর্বে মহান আকাঙ্খিত পবিত্র বর্ষাসাটিক চীবর দান উৎসর্গ ও ধর্মদেশনার আয়োজন করা হয়। 

এবং উক্ত অনুষ্ঠান পর্বে অষ্টশীল প্রার্থনা করেন ধর্মানুশীলা উপাসিকা মিসেস অনিতা বড়ুয়া। এবং অনুষ্ঠানে অত্র সেন্টারের অধ্যক্ষ ভান্তে প্রফেসর ফ্রা মহা নিরোধ (এম.ফিল.) মহোদয়, অশান্ত বিশ্বের সুখ ও সমৃদ্ধি কামনায় বিশেষ প্রার্থনা করে সকলের প্রতি মৈত্রী ও আশীর্বাদ জ্ঞাপন করেন। এবং বোস্টন প্রবাসী বাংলাদেশী বৌদ্ধদের ঐক্য, প্রগতি ও সংহতি নিয়ে বিশদভাবে ধর্মালোচনা ও দিকনির্দেশনা মুলক গুরুত্বপূর্ণ ধর্মদেশনা তথা বর্ষাসাটিক চীবর দানের গুরত্ব ও তাৎপর্য নিয়ে ধর্মদেশনা প্রদান করেন। 

এছাড়াও ত্রৈমাসিক বর্ষাব্রতের অষ্টমী তিথি উপলক্ষে সকালবেলা অষ্টশীল গ্রহন করেন উপাসিকা মিসেস অনিতা বড়ুয়া, ধর্মপ্রান উপাসক বাবু তপন চৌধুরী, উপাসিকা মিসেস শর্মিলা চৌধুরী, উপাসক বাবু তপন কুমার সিংহ, উপাসিকা মিসেস মন্জু বড়ুয়া, উপাসক বাবু দেবাশীষ বড়ুয়া (দেবু) উপাসিকা মিসেস তাপসী বড়ুয়া (নুপুর), উপাসক বাবু তমাল বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস সোমা বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস রোজী বড়ুয়া, উপাসক বাবু উৎপল বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস মন্দিরা বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস তনুশ্রী বড়ুয়া প্রমুখ। 

এবং পঞ্চশীল গ্রহন করেন যথাক্রমে ধর্মপ্রান উপাসক বাবু অংসাথোয়াই মার্মা, উপাসিকা মিসেস মাসুই মার্মা, উপাসক বাবু বাসু বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস জয়া বড়ুয়া, উপাসক বাবু অয়ন বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস শর্মিষ্ঠা চৌধুরী, উপাসিকা মিসেস দেবশ্রী ক্যাম্পবেল, উপাসিকা মিসেস সুপ্রীতি বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস পৌলমী বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস পিপলু বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস লক্ষী বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস ববি বড়ুয়া, উপাসিকা মিসেস নিপা বড়ুয়া ও উপাসিকা মিসেস তিমা মুৎসুদ্দি প্রমুখ। 


সমগ্র অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধান করেন : বাবু সার্জেন্ট ( অব: ) উৎপল কুমার বড়ুয়া, বাবু মুন্না বড়ুয়া, বাবু তাপস বড়ুয়া, বাবু টুটুল বড়ুয়া, বাবু সুমিত বড়ুয়া, বাবু উজ্জ্বল বড়ুয়া, বাবু জুয়েল বড়ুয়া, বাবু কল্লোল বড়ুয়া ও বাবু স্বরুপ বড়ুয়া প্রমুখ। 


***বি:দ্র: উল্লেখ্য যে আগামী ১৩ই অক্টোবর ২০১৯ইং রবিবার মহাসাডম্বরে অত্র সেন্টারের উদ্যেগে পবিত্র শুভ প্রবারনা পূর্ণিমা উদযাপন করা হইবে। এবং 

আগামী ১০ই নভেম্বর ২০১৯ইং রবিবার দানোত্তম শুভ কঠিনচীবর দান উদযাপনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে। এবং কঠিন চীবর দান উপলক্ষে দুপুর ২ ঘটিকার সময় বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী বাবু সমীরন বডুয়া (নিউইয়র্ক) ও প্রয়াস শিল্পী গোষ্ঠীর পরিবেশনায় মনোজ্ঞ ধর্মীয় সংগীতের আয়োজন করা হয়েছে। 

উক্ত অনুষ্ঠানে আপনারা সবাই নিমন্ত্রিত।

See More

Latest Photos