চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বড় দারোগাহাট ওজন স্কেল ভাঙচুর করছে পরিবহন শ্রমিকেরা

Total Views : 672
Zoom In Zoom Out Read Later Print

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বড় দারোগাহাট এক্সেল লোড কন্ট্রোল স্টেশনে (ওজন স্কেল) টোল আদায়কারীদের সঙ্গে ট্রাকচালকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ চালকেরা সড়কে গাড়ি আড়াআড়ি করে রেখে মহাসড়ক অবরোধ করে। তাঁরা ভাঙচুর করেছেন ওজন স্কেলের বক্স অফিস।

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বড় দারোগাহাট এক্সেল লোড কন্ট্রোল স্টেশনে (ওজন স্কেল) টোল আদায়কারীদের সঙ্গে ট্রাকচালকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ চালকেরা সড়কে গাড়ি আড়াআড়ি করে রেখে মহাসড়ক অবরোধ করেন। তাঁরা ভাঙচুর করেছেন ওজন স্কেলের বক্স অফিস। আজ শনিবার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে মহাসড়কে গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সমস্যা সমাধানে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মশিউদ্দৌলা রেজা, সীতাকুণ্ড সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শম্পা রানী সাহাসহ পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান। এরপর সংঘর্ষ শুরু হয় পুলিশের সঙ্গে। সড়ক ও বিভাগ (সওজ) ও স্থানীয় লোকজন বলেন, গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে চট্টগ্রামমুখী একটি ট্রাককে ওজন স্কেলের লাইনে ঢোকার সংকেত দেন স্কেলের লোকজন। ট্রাকটি স্কেল লাইনে না গিয়ে সোজা পথে চলে যেতে থাকে। এ সময় স্কেলের লোকজনের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয়। পরে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় ট্রাকটির চাকার বাতাস ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর বিক্ষুব্ধ পরিবহনশ্রমিকেরা ওজন স্কেলের কার্যালয় ভাঙচুর করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মহাসড়ক থেকে গাড়ি সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। তখন শুরু হয় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ। এ সময় পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে। পরে চালকেরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যান। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ধীরে ধীরে গাড়ি চলাচল করতে শুরু করে। সওজর উপবিভাগীয় প্রকৌশলী রবিউল হোসেন প্রথম আলো বলেন, চালকদের সঙ্গে স্কেলের লোকেদের সংঘর্ষ হয়েছে। বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা চলছে। সীতাকুণ্ড থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন খান প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনার খবরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাসহ অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে। যান চলাচল স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে।

See More

Latest Photos